Li-Fi Technology - CSLiT | Connecting Technology

Li-Fi Technology

কম বেশি সবাই আমরা আমাদের বাসাবাড়িতে LED (Light Emitting Diode) লাইট ব্যবহার করে থাকি। এলইডি লাইট যেমন ভালোমানের আলো প্রদান করে থাকে তেমনি এলইডি লাইট ব্যবহার করে কৃত্তিম উপগ্রহের মাধ্যমে ডাটা আদান প্রদান করা যাবে কম্পিউটার, ল্যাপটপ কিংবা হাতে ব্যাবহৃত মোবাইল স্মার্ট ওয়াচটিতে।শুনতে একটু অবাক হলেও এটিই সত্য।আর এই প্রযুক্তির নাম দেওয়া হয়েছে Li-Fi (Light Fidelity) যা ওয়াইফাই থেকে ১০০ গুন বেশি দ্রুত গতিসম্পন্ন।
২০১১ সালে স্কটল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অফ এডিনবার্গের বিজ্ঞানী হারাল্ড হাস লাইফাই প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেন এবং পরবর্তীতে তিনি টেডেক্স মিটিংএ সকলের সামনে এটি উপস্থাপন করেন। এলইডি লাইটে অনেক দ্রুত গতিতে অফ অন সিগন্যাল প্রেরণ করা সম্ভব ঠিক । একই প্রযুক্তিতে বাইনারি কোডের ভাষায় তথ্য আদান প্রদান করা সম্ভব। পরীক্ষায় দেখা গেছে এই প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রতি সেকেন্ডে প্রায় ২২৪ গিগাবাইট তথ্য আদান প্রদান করা সম্ভব যেখানে ওয়াইফাইয়ের সর্বোচ্চ গতির রেকর্ড করা হয়েছে ৬০০ মেগাবাইট মাত্র। লাইফাই এর আবিষ্কারক হারাল্ড হাস একটি সাক্ষাৎকারে বলেছেন প্রতিটি এলইডি লাইটের সাথে স্পেশাল মাইক্রোচিপ লাগিয়ে দিলে এটি তথ্য আদান প্রদানের কাজ টি খুব সুন্দরভাবে করবে। তিনি আরো বলেন লাইফাই এর কাজটি এতো দ্রুত হবে যে এটি মানুষের পক্ষে নির্নয় করা সম্ভব নয় এবং এটি চোখের জন্যও কোনো রকম ক্ষতিকর হবে না। লাইফাই প্রযুক্তি বিশ্বব্যাপী বেশ সমাদৃত হচ্ছে।
লাইফাই প্রযুক্তি যেমন অনেক বেশি দ্রুত গতি সম্পন্ন তেমন এর সীমাবদ্ধতাও অনেক বেশি। লাইফাই সম্পূর্ণ রূপে এলইডি লাইটের আলোর উপর নির্ভরশীল। আলো যেহেতু দেওয়াল ভেদ করতে পারে না তাই লাইফাইও দেওয়াল ভেদ করে অন্য কোথাও যেতে পারে না।সুতরাং এলইডি লাইটের আলো থেকে যখন আপনি দূরে সরে যাবেন তখন লাইফাই থেকেও আপনি বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবেন। শুধু এইটুকু সীমাবদ্ধতা বাদ দিলে লাইফাই অনেক বেশি শক্তিশালী, নিরাপদ এবং নির্ভরযোগ্য ।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *